57:25(লোহা)

Parent Previous Next

আমি আমার রসূলগণকে সুস্পষ্ট নিদর্শনসহ প্রেরণ করেছি এবং তাঁদের সাথে অবতীর্ণ করেছি কিতাব ও ন্যায়নীতি, যাতে মানুষ ইনসাফ প্রতিষ্ঠা করে। আর আমি নাযিল করেছি লৌহ, যাতে আছে প্রচন্ড শক্তি এবং মানুষের বহুবিধ উপকার। এটা এজন্যে যে, আল্লাহ জেনে নিবেন কে না দেখে তাঁকে ও তাঁর রসূলগণকে সাহায্য করে। আল্লাহ শক্তিধর, পরাক্রমশালী। [সুরা হাদীদ: ২৫]


লোহাকে "নাযিল" করা হয়েছে?


জবাব:


আমি আমার রসূলগণকে সুস্পষ্ট নিদর্শনসহ প্রেরণ করেছি এবং তাঁদের সাথে অবতীর্ণ করেছি কিতাব ও ন্যায়নীতি, যাতে মানুষ ইনসাফ প্রতিষ্ঠা করে। আর আমি নাযিল করেছি লৌহ, যাতে আছে প্রচন্ড শক্তি এবং মানুষের বহুবিধ উপকার। এটা এজন্যে যে, আল্লাহ জেনে নিবেন কে না দেখে তাঁকে ও তাঁর রসূলগণকে সাহায্য করে। আল্লাহ শক্তিধর, পরাক্রমশালী। [সুরা হাদীদ: ২৫]


(57:25) Indeed We sent Our Messengers with Clear Signs, and sent down with them the Book and the Balance that people may uphold justice.And We sent down iron, wherein there is awesome power and many benefits for people, so that Allah may know who, without even having seen Him, helps Him and His Messengers. Surely Allah is Most Strong, Most Mighty.



লক্ষ করুন এখানে স্পস্ট বলা হচ্ছে লোহাকে "নাযিল"( sent down )করা হয়েছে।

আরবিতে وَأَنزَلْنَا ("anzalna,")-আনযালনা মানে পাঠান বা প্রেরন করা বা নাযিল করা।


এই ভিডিওটি দেখলে আরো পরিষ্কার হবে।


source of iron in earth


http://www.youtube.com/watch?feature=player_detailpage&v=FGilzZgKmME


বিশ্বয়করভাবে কোরআন বলছে লোহাকে পৃথিবীতে পাঠান হয়েছে(sent down), যে তথ্যটি একদম সঠিক।


এবার আসুন আমরা দেখি লোহার গঠন প্রকিতি--


১/লোহার ৪ টি স্টেবল আইসটোপ আছে- 54Fe, 56Fe,57Fe, 58Fe


অর্থাৎ ৫৪, ৫৬, ৫৭, ৫৮ এই ৪ টি আইসটোপ ।


২/ লোহার এটমিক নাম্বার ২৬


৩/ লোহার স্টেবল আইসটোপগুলো নিউট্রন সংখ্যা ২৮, ৩০, ৩১, ৩২


কোরআনে এই তথ্যগুলো কোড করা হয়েছে এভাবে--


১/ কোরআনের ৫৭ নং সুরার নাম লোহা বা আল-হাদীদ, এই সুরার আগে ৫৬ টি ও পরে ৫৭ টি সুরা আছে (মোট ১১৪ টি সুরা), এই সংখ্যাগুলো লোহার আইসটোপের সাথে সামন্জস্যপুর্ন



২/ ২৫ নং আয়াতে সর্বপ্রথম "হাদীদ বা লোহা" শব্দটি এসেছে। এই আয়াত পর্যন্ত ২৬ বার আল্লাহ নামটি এসেছে। ২৬ লোহার এটমিক নাম্বার।


আল্লাহ শব্দটি এসেছে-- আয়াত নং ১, ৪, ৫, ৭, ৮, ৯, ১০(৪বার),১১, ১৪(২বার), ১৬, ১৭, ১৮, ১৯, ২০, ২১(৩ বার), ২২, ২৩, ২৪, ২৫(২বার)। মোম

মোট ২৬ বার।


৩/ এই সুরায় আয়াত আছে ২৯টি, আর "লোহা বা হাদীদ" শব্দটি এসেছে ২৫ নং আয়াতে , ২৯-২৫= ৪।

আর লোহার স্টেবল আইসটোপ সংখ্যা হল ৪ টি।


৪/ পুরা হাদীদ সুরায় আল্লাহর নাম এসেছে ৩২ বার যা একটি স্টেবল আইসটোপের নিউট্রন সংখ্যার সমান।



আমরা যদি সংখেপে দেখি তাহলে পাব--


--- আল্লাহ বলেছেন লোহাকে নাযিল ( sent down) করা হয়েছে , যা একদম সঠিক


--- কোরআনের ৫৭ নং সুরার নাম লোহা বা আল-হাদীদ, লোহার একটি স্টেবল আইসটোপের মান ৫৭।


--- লোহার এটমিক নাম্বার ২৬ , আর আল্লাহর নাম এসেছে ২৬ বার ( ২৫ নং আয়াত পর্যন্ত , যে আয়াতে লোহা শব্দটি আছে।


---পুরা হাদীদ সুরায় আল্লাহর নাম এসেছে ৩২ বার যা একটি স্টেবল আইসটোপের নিউট্রন সংখ্যার সমান


অর্থাৎ স্পস্টতই কোরআনে লোহা সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য সন্নিবেশীত হয়েছে অত্যন্ত বিশ্বয়করভাবে।

Created with the Personal Edition of HelpNDoc: Create iPhone web-based documentation