দুই উদয়াচল ও মধ্যবর্তী বহু উদয়াচল

Parent Previous Next

কোরআনে দুই উদয়াচল ও মধ্যবর্তী বহু উদয়াচলের কথা বলা হয়েছে। এটা বৈজ্ঞানিক ভুল।


জবাব :

তিনি দুই উদয়াচল ও দুই অস্তাচলেরমালিক। [অনুবাদঃ মুহিউদ্দীন খান] ‌[55:17]

আমি শপথ করছি উদয়াচল ওঅস্তাচলসমূহের পালনকর্তার, নিশ্চয়ই আমি সক্ষম! [অনুবাদঃ মুহিউদ্দীন খান] ‌[70:40]

অর্থাৎ কোরআনে উপরোক্ত আয়াতে দুই উদয়াচল ও মধ্যবর্তী বহু উদয়াচলের কথা বলা হয়েছে।


পৃথিবীর নিজ অক্ষে ঘূর্ণনের ইনক্লাইনেশনের(বাঁক) ফলে প্রতিনিয়ত সিজন পরিবর্তন হয় এবং একই সাথে সূর্যোদয় ও সূর্যাস্তের অবস্থান পরিবর্তন হয়। বছরে কেবল একটা সময়েই সূর্য একদম পূর্ব দিকে উঠে। অন্য সময় তা কিছুটা বাম দিকে নয়ত ডান দিকে থাকে। সর্ব বামের বিন্দু হল একটি চরম বিন্দু এবং সর্ব ডানের বিন্দু হল বিপরীত চরমবিন্দু। এর একটি হল summer solstice এবং অপরটি হল winter solstice।

পৃথিবী পশ্চিম থেকে পূর্ব দিকে ঘুরে যার কারনে পূর্ব দিকে সূর্য উঠে। কিন্তু এই ঘূর্ণন কেবল পশ্চিম থেকে পূর্ব নয়। যদি হত তবে সর্বদা সূর্য বিষোব রেখা বরাবর উঠত। কিন্তু আসল ব্যাপার হল সূর্য বছরে কেবল মার্চ এবং সেপ্টেম্বরেই বিষোব রেখা বরাবর উদিত হয়।




পৃথিবী এই স্বাভাবিক ঘূর্ণনের সাথে সাথে একবার বামে হেলে অতঃপর আবার ডানে হেলতে থাকে । তাই জুনে সূর্য কর্কট ক্রান্তি বরাবর উঠে অতঃপর সূর্য মকর ক্রান্তির দিকে দাবিত হয়। এবংবিষোব রেখা হয়ে ডিসেম্বরে মকর ক্রান্তিতে পৌছে। অর্থাৎ বছরে জুন মাসে পূর্ব দিক হবে কর্কট ক্রান্তি বরাবর , মার্চ এবং সেপ্টেম্বরে পূর্ব দিক হবে বিষোব রেখাবরাবর এবং ডিসেম্বরে পূর্ব দিক হবে মকর ক্রান্তি বরাবর। অর্থাৎ দুই উদয়াচল ও মধ্যবর্তী বহু উদয়াচল বৈজ্ঞানিক ভুল নয় বরং বৈজ্ঞানিক নিদর্শন।

Created with the Personal Edition of HelpNDoc: Single source CHM, PDF, DOC and HTML Help creation