ইচ্ছেকৃত হত্যার সাজা নেই

Parent Previous Next

কুরান ভুলবশত (?) হত্যার বেলায় একটা সহজ সাজা নির্ধারন করে দিয়েছে – একজন দাস মুক্তি / রক্ত পণ অর্পন (ক্ষতি পূরণ) / দুই মাস সিয়াম (রোজা পালন), যদিও ইচ্ছেকৃত হত্যার বেলায় বেঁচে থাকতে তাঁর কোন সাজা নেই (Quran 4:92-93) ! আপনার কি মনে হয় এটা কোন আল্লাহর তৈরি আইন হতে পারে ?


জবাব :

পাঠক আসলে কোরআনে ৪:৯২-৯৩ আয়াতে বলা হয় নাই যে, ইচ্ছাকৃত খুনের জন্যে কাউকে ছেড়ে দেওয়া হবে। চলুন আয়াতদ্বয় দেখি-


৪:৯২

মুসলমানের কাজ নয় যে, মুসলমানকে হত্যা করে; কিন্তু ভুলক্রমে। যে ব্যক্তি মুসলমানকে ভূলক্রমে হত্যা করে, সে একজন মুসলমান ক্রীতদাস মুক্ত করবে এবং রক্ত বিনিময় সমর্পন করবে তার স্বজনদেরকে; কিন্তু যদি তারা ক্ষমা করে দেয়। অতঃপর যদি নিহত ব্যক্তি তোমাদের শত্রু সম্প্রদায়ের অন্তর্গত হয়, তবে মুসলমান ক্রীতদাস মুক্ত করবে এবং যদি সে তোমাদের সাথে চুক্তিবদ্ধ কোন সম্প্রদায়ের অন্তর্গত হয়, তবে রক্ত বিনিময় সমর্পণ করবে তার স্বজনদেরকে এবং একজন মুসলমান ক্রীতদাস মুক্ত করবে। অতঃপর যে ব্যক্তি না পায়, সে আল্লাহর কাছ থেকে গোনাহ মাফ করানোর জন্যে উপর্যুপুরি দুই মাস রোযা রাখবে। আল্লাহ, মহাজ্ঞানী, প্রজ্ঞাময়।



৪:৯৩

যে ব্যক্তি স্বেচ্ছাক্রমে মুসলমানকে হত্যা করে, তার শাস্তি জাহান্নাম, তাতেই সে চিরকাল থাকবে। আল্লাহ তার প্রতি ক্রুদ্ধ হয়েছেন, তাকে অভিসম্পাত করেছেন এবং তার জন্যে ভীষণ শাস্তি প্রস্তুত রেখেছেন।


এখানে কোথায় বলা হয়েছে খুনি কে বেঁচে থাকতে দেওয়া হবে? বরং বলা হয়েছে ইচ্ছাক্রিত ভাবে খুনের শাস্তি জাহান্নাম। তাকে দুনিয়াতে মেরে ফেলা হোক আর না হোক।



Created with the Personal Edition of HelpNDoc: Full-featured multi-format Help generator