বৈজ্ঞানিক আবিষ্কার কোরআনের আয়াতের সাথে সমন্বয়

Parent Previous Next

কোন বৈজ্ঞানিক আবিষ্কার প্রকাশ হওয়ার পর মুসলিমরা তড়িঘড়ি করে কোরআনের আয়াতের সাথে সমন্বয় করানোর চেষ্টা করে কেন? বৈজ্ঞানিক আবিষ্কারের আগে তারা কিছু বলে না কেন?


জবাব:

প্রথমত, মুসলিমরা যেহেতু কোরআনকে এই মহাবিশ্বের সৃষ্টিকর্তার রেভিলেশন হিসেবে বিশ্বাস করে সেহেতু তারা কোরআনকে বৈজ্ঞানিক আবিষ্কারের সাথে সমন্বয় করাতেই পারে। এখানে অসততার কিছু নাই।

দ্বিতীয়ত, বৈজ্ঞানিক আবিষ্কারের আগে নাকি পরে কোরআনের সাথে সমন্বয় করানো হলো সেটা যেমন কোন বিবেচ্য বিষয় নয় তেমনি আবার তার জন্য কারো ঈর্ষা বা গাত্রদাহ হওয়ারও কথা নয়। তাছাড়া বিজ্ঞান কারো পৈত্রিক সম্পত্তি নয় যে, তার ইচ্ছা-অনিচ্ছা অনুযায়ী মুসলিমরা উঠাবসা করবে। বিজ্ঞানে সবারই কম-বেশী ও প্রত্যক্ষ-পরোক্ষ অবদান আছে। দেখতে হবে যে দাবিটা যৌক্তিক কি-না। ব্যাস। ইতোমধ্যে বেশ কয়েকজন অমুসলিম ও ইসলামে ধর্মান্তরিত বিজ্ঞানী কোরআনের বেশ কিছু আয়াতকে তথ্যপূর্ণ ও বৈজ্ঞানিক বলে সার্টিফাই করেছেন।

তৃতীয়ত, যেখানে কোরআনে বিশ্বাস না করেও মিথ্যা-প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে এবং সেই সাথে দুনিয়ার আবর্জনাকে বিজ্ঞানের নামে চালিয়ে দিয়ে কোরআনকে ভুল ও অবৈজ্ঞানিক প্রমাণ করার চেষ্টা চলছে সেখানে কোরআনে বিশ্বাস করেও কোরআনকে প্রতিষ্ঠিত বিজ্ঞানের সাথে সমন্বয় করানো যাবে না – এ কি মগের মুল্লুক নাকি মিয়া ভাই?

চতুর্থত, কোরআনকে বৈজ্ঞানিক আবিষ্কারের সাথে সমন্বয় করানো যদি মহা-অপরাধ হয় তাহলে কোথাও কোন বোমাবাজি বা চোরাগুপ্তা সন্ত্রাসী হামলা হওয়ার সাথে সাথে যারা তড়িঘড়ি করে কোরআনের আয়াতের সাথে সমন্বয় করে তাদের কী হবে? প্রকৃত অসৎ কে বা কারা? যারা কোরআনকে বৈজ্ঞানিক আবিষ্কারের সাথে সমন্বয় করানোর চেষ্টা করে তারা, নাকি যারা কোরআনে বিশ্বাস না করেও অসততার আশ্রয় নিয়ে কোরআনকে বোমাবাজি ও চোরাগুপ্তা সন্ত্রাসী হামলার সাথে সমন্বয় করে তারা?

Created with the Personal Edition of HelpNDoc: Free PDF documentation generator