স্রষ্টাকে কে সৃষ্টি করলো?

Parent Previous Next

স্রষ্টাকে কে সৃষ্টি করলো? তিনি কোথা থেকে আসলেন?


জবাব:


১- প্রথম কথা হলো, স্রষ্টাকে কে সৃষ্টি করলো, এই প্রশ্নের মাঝে একটা ফাঁক আছে।সেটা হলো প্রশ্নকারী বিনা প্রমাণে আগেই ধরে নিয়েছে যে, স্রষ্টাকে সৃষ্টি করা হয়েছে; তিনি একসময় ছিলেননা। যেমন নাকি আপনি যদি জিজ্ঞাসা করেন যে, স্রষ্টা কি খান? এর মানে হলো, আপনি আগেই বিনা প্রমাণে ধরে নিয়েছেন যে স্রষ্টার খেতে হয়। আবার আপনি যদি জিজ্ঞাসা করেন যে, স্রষ্টার সন্তান কয়জন? এর মানে হলো, আপনি আগেই বিনা প্রমাণে ধরে নিয়েছেন যে, স্রষ্টার সন্তান আছে। অথচ এরকম বিনা প্রমাণে কিছু ধরে নিয়ে, তার উপর ভিত্তি করে প্রশ্ন করা একেবারেই অযৌক্তিক। যেমন নাকি কেউ পরীক্ষাই দেয়নি, অথচ আপনি তাকে জিজ্ঞাসা করছেন পরীক্ষাতে কত পেয়েছো।


তাই স্রষ্টার অস্তিত্ব প্রমাণিত হবার পর, তাকে কে সৃষ্টি করলো এই প্রশ্ন করার আগে আপনাকে অবশ্যই প্রমাণ করতে হবে যে, তিনি একসময় ছিলেন না, তাকে পরে সৃষ্টি করা হয়েছে। এটা প্রমাণ না করে তাকে কে সৃষ্টি করলো, এই প্রশ্ন করা একেবারেই অযৌক্তিক। যেমন নাকি আমরা আগে প্রমাণ করেছি যে, এই মহাবিশ্ব একসময় ছিলোনা, পরে অস্তিত্বে এসেছে।


২- দ্বিতীয় কথা হলো, নাস্তিকরা যেহেতু এটা কখনোই প্রমাণ করতে পারবে না এবং সম্ভবও নয় যে, স্রষ্টার শুরু আছে ; তাই পোষ্টদাতা নিজেই আগে বেড়ে উল্টো প্রমাণ করেছেন যে, স্রষ্টার কোন সৃষ্টিকর্তা থাকা সম্ভব নয়। কেননা স্রষ্টারও যদি কোন সৃষ্টিকর্তা থাকে তাহলেতো সেই সৃষ্টিকর্তারও আরেকজন স্রষ্টা লাগবে। আবার তারও আরেকজন লাগবে। এভাবে চলতেই থাকবে পিছনের দিকে অসীম ধারা। অথচ এটা অসম্ভব, বর্তমানে বিদ্যমান এমন কোন কিছুর পিছনের দিকে কোন অসীম ধারা থাকতে পারেনা। তাহলেতো বর্তমানে বিদ্যমান বস্তুটির অস্তিত্বে আসার পালা বা সুযোগই কখনো আসতোনা। যেমন ধরেন এই মহাবিশ্ব হলো X, তার স্রষ্টা হলো A, আবার A এর স্রষ্টা হলো B, আবার B এর স্রষ্টা হলো C এভাবে অসীম ধারা চলা অসম্ভব। অবশ্যই এক জায়গায় থামতে হবে, যার কোন স্রষ্টা নেই, যার কোন শুরু নেই। এটা বুঝার জন্য কিছু উপমা দিচ্ছি । মনযোগ দিয়ে পড়ুন। ধরুন, আপনি বাসে উঠার জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে আছেন, আপনার সামনে যদি ৫০০জন থাকে, তাহলে আপনি ৫০০জনের পরে বাসে উঠার চান্স পাবেন। যদি আপনার সামনে ১০০০ জন থাকে তাহলে আপনি ১০০০জনের পরে বাসে উঠতে পারবেন। কিন্তু যদি আপনার সামনে অসীম সংখ্যক লোকের লাইন থাকে , তাহলে কি আপনার বাসে উঠার পালা কখনো আসবে? না, কখনো আসবে না। কেননা , অসীম সংখ্যক লোকেরও বাসে উঠা শেষ হবেনা, আর আপনারও বাসে উঠার পালা কখনোই আসবেনা। এবার উল্টাভাবে চিন্তা করুন। ধরুন, একটা লোক তার সামনের লোকদের বাসে উঠার পরে সে বাসে উঠেছে। এখন এই লোকটা কত জনের পর উঠেছে? যত জনের পরেই উঠুকনা কেন, সেটার অবশ্যই একটা সীমা আছে। একথা বলা যাবেনা যে, সে অসীম সংখ্যক লোকের পর বাসে উঠেছে। কেননা তার সামনে যদি অসীম সংখ্যক লোকই থাকতো, তাহলেতো সেই অসীম সংখ্যক লোকেরও কোনদিন বাসে উঠা শেষ হতোনা, আর তারও কোনদিন বাসে উঠার পালা আসতনা। কিন্তু যেহেতু তার পালা এসেই গেছে, বাসে যেহেতু সে উঠেই গেছে; এটাই অকাট্য প্রমাণ যে সে সসীম ও নির্দিষ্টসংখ্যক কিছু লোকের পর বাসে উঠেছে। ঠিক তেমনি এই মহাবিশ্ব যেহেতু অস্তিত্বে এসেই গেছে, এটাই অকাট্য প্রমাণ যে এই মহাবিশ্বের অস্তিত্বের পিছনে কারণের কোন অসীম লাইন নেই । বরং শুরুতে এমন একজন স্রষ্টা আছেন যার পিছনে আর কোন স্রষ্টা নেই। সহজ করে বুঝাতে চেষ্টা করলাম, কিন্তু পারলামনা মনে হয়। যাক আল্লাহ্‌ আমাদের সবাইকে বুঝার তওফিক দান করুন । আমীন।

Created with the Personal Edition of HelpNDoc: Easily create CHM Help documents